Home কবিতা

কবিতা

সাকিন ও সাং

ক্রমশ পাখির কাছে এই গান চিরদূর হাওয়া দূরে, হিজল ফুলের পাশে ঝরছে দুপুর—মন্দিরের পাথরের নিচে অন্ধকারের সুঠাম অশ্বেরা দৌড়ের ভঙ্গিমায় দাঁড়িয়ে আছে সার ধরে, প্রত্যেকটা গাছ পাতার শান্ত নিবিড়তায় সুনসান করছে বায়ুস্তরে, তুঁতের ফলগুলো ভালোবাসে আলতো হাওয়া কিন্তু সময় তাদের পেকে তুলছে অহেতু নিরর্থকতায় যেন ডানা খসে পড়বার আগেই চারণভূমির প্রতিটা বকরির গলায় লটকে থাকা […]

ধুলো মাটিতে লুটিয়ে পড়ছে ফুল

ধুলো মাটিতে লুটিয়ে পড়ছে ফুল - এই বিশ্ব জগৎ মূর্ত হয় প্রকৃতির নানা আবর্তনের ভেতর দিয়ে। আবর্তনের বৃহৎ অংশ জুড়ে মানব সমাজ বিরাজমান। অনুভূতির মানবিক ভাষ্য নির্মাণ তাই অত্যন্ত জরুরী। সেই দিক লক্ষ্য রেখেই কবি অংশুমান কর এর এই কবিতা প্রয়াস

পাখির পিণ্ড থেকে এই ভাষা ছড়ায়

সময় ●● আমি তোমাকে চাইছি— অবশিষ্ট বাতাসের চূড়ায় যেন আগুনের একটি মথ ধপ করে জ্বলে উঠলো আমাকে চিনতে পারো? এই জীবন তোমার— খানিকটা আমারও কবে থেকে শুরু হলো? এই তো শেষ আশ্রয় চোখ বন্ধ করে আছি পৃথিবীর কিনারায়— পরিতৃপ্ত এখন। আমাদের সময় ফুটন্ত ফুল একবার আকাশে ছুঁড়ি একবার বাতাসের ঢেউ আমি তোমাকে চিনি তুমিও আমাকে […]

কামরাঙা রঙের স্বপ্ন

এখন যৌবনকাল ●● রুগ্ন শরীর, তুলতুলে নরম চামড়ার বার্ধক্যকে দেখলাম পথের ধারে বসে আছে। নাতিশীতোষ্ণ আবহাওয়ায় হাত দুটো থরথর করে কাঁপছে। ছানি ধরা দুটো চোখে ওনার পক্ষে যৌবন দেখা সম্ভব নয়। ঘরে ফিরে ঈশ্বরকে দুষলাম ওনার কেঁপে ওঠা হাত দুটোর জন্য ছানি পরা চোখ দুটোর জন্য। সমস্ত দুর্ভাগ্যের জন্য। দায় সেরে ঘুমোতে যাব ঠিক এমন […]

পোকাদের সমবেতস্বর

পুরুষ মিথের মত দ্বিধা নিয়া তুমি যেকোন রেকেজের ধারে ফুটে থাকা বেনামি ফুল। তোমারে পরলোটা কে? পড়ছেই বা কে তোমার মৃত ভাষা- খালি খালি দাগলা কামান, হানলা কৃপাণ, ছুঁড়লা গুলি বেশুমার, মায়ের অর্ধেক হয়েও পর হইলা নারীর! যিশু নিতান্ত ইগোর বশে বলা হইলো ক্ক্রুরসিফাই। কাঠের ক্রস কাঁধে আর পিঠে রোমান ইগোর আল্পনা নিয়া যিশু হাঁটে, […]

ধারালো চঞ্চুতে তোমার ফালি ফালি হইতেছি

ধারালো চঞ্চুতে তোমার ফালি ফালি হইতেছি - বায়েজিদ বোস্তামী তার কবিতা গুচ্ছে এক দার্শনিক দৃষ্টি ভঙ্গি থেকে সমাজ ও রাষ্ট্র কে দেখেন। আবার কোথাও প্রেমময় উচ্চারণ শুনি কবি কন্ঠে - নীলজলে সাঁতরাতে দেবে না বা সোনারোদ গায়ে মাখতে দেবে না।

দাঁড়ানোর সীমানা

দাঁড়ানোর সীমানা - শিমুল মাহমুদের ভাত খাওয়ার শব্দ পান্ডুলিপির নির্বাচিত কবিতা। কবিতায় কবি মানুষের ভেতরের মানুষকে আবিষ্কার করবার চেষ্টা করেছেন। যেখানে মানুষের সমতাহীন সমাজ ব্যবস্থার প্রতিচিত্র নির্মান করেছে তার প্রতিটি কবিতায়।

দেহ পালিত সাপের খামার

দেহ পালিত সাপের খামার - বাংলাদেশ কে কবি সাকিব শাকিল কখনো প্রস্ফুটিত ফুলের মতো, কখনো অন্ধকার রাতে গা ছমছমে রাস্তায় একা চলবার অনুভূতি আবার কখনো কখনো বিমূর্ত প্রতিচ্ছবি গড়ে তুলেছেন কবিতার পঙতিতে পঙতিতে।

রেইনট্রির ইন্দ্রজাল

রেইনট্রির ইন্দ্রজাল - কবিতার ইল্যুশন পাহাড়ের পরিচিত ভূগোল কি ভাবে পূজিঁবাদের থাবায় হারিয়ে যাচ্ছে, আর সেটা যেন কবি সুজালো যশ ক্যামেরার প্যান এ শূন্য হতে দেখছেন। আবার কখনো কবি সুজালো যশ কার্তিকের জোৎস্নায় স্নান করেন।

মানবের পদচিহ্ন

মানবের পদচিহ্ন -গৌতম কৈরী তার কবিতায় ক্রমাগত যে নির্মিতির দিকে যাচ্ছে তার প্রমাণ কবিতায় সুস্পষ্ট। কবিতা পাঠে আমরা তার অনুচ্চারিত শব্দমালা দেখতে পাই,যা গৌতম পদচিহ্ন হিসেবে বাংলা কবিতায় রেখে যেতে চায়।