Home শিমুল মাহমুদ

শিমুল মাহমুদ

শিমুল মাহমুদ তথাকথিত পন্ডিতগণের একাডেমিক ট্র্যাশ থেকে ঘোষণা দিয়েই দূরে রেখেছেন নিজেকে; অস্বীকার করেছেন যাবতীয় লিঁয়াজো-নির্ভর পুরস্কার ও গোষ্ঠীকেন্দ্রিক পিঠচাপড়ানো। তিনি আশির দশকের শেষভাগ থেকে শুরু করে তিন দশক যাবৎ সম্পাদনা করেছেন সাহিত্যের কাগজ কারুজ। এ পর্যন্ত তাঁর গ্রন্থসংখ্যা: ২৫। জন্ম ১৯৬৭ সালের ৩ মে। পেশা এবং নেশা: অধ্যাপনা। কর্মস্থল: বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগ। পছন্দ: পাঠগ্রহণ, ভ্রমণ ও একাকিত্ব। অপছন্দ করেন মঞ্চলোলুপ আঁতলামো। প্রকাশিত গ্রন্থ : কবিতাগ্রন্থ : মস্তিষ্কে দিনরাত্রি (কারুজ : ১৯৯০), সাদা ঘোড়ার স্রোত (নিত্যপ্রকাশ : ১৯৯৮), প্রাকৃত ঈশ্বর (শ্রাবণ প্রকাশন : ২০০০, নাগরী সংস্করণ ২০১৯), জীবাতবে ন মৃত্যবে (শ্রাবণ প্রকাশন : ২০০১), কন্যাকমলসংহিতা (ইত্যাদি : ২০০৭), অধিবিদ্যাকে না বলুন (ইত্যাদি : ২০০৯), আবহাওয়াবিদগণ জানেন (চিহ্ন : ২০১২), বস্তুজৈবনিক (নাগরী : ২০১৬), কাব্যকথা কাকবিদ্যা (অনুপ্রাণন : ২০১৬), সমূহ দৃশ্যের জাদু (চৈতন্য : ২০১৮), ভাষাদের শস্যদানা (বেহুলাবাংলা : ২০১৯), দেশভাগ হইল একফালি নকশাদার লাল তরমুজ (বেহুলাবাংলা : ২০২০) গল্পগ্রন্থ : ইলিশখাড়ি ও অন্যান্য গল্প (নিত্যপ্রকাশ : ১৯৯৯, নাগরী সংস্করণ ২০১৭), মিথ মমি অথবা অনিবার্য মানব (পুন্ড্র প্রকাশন : ২০০৩, চৈতন্য সংস্করণ ২০১৮), হয়তো আমরা সকলেই অপরাধী (গতিধারা : ২০০৮), নির্বাচিত গল্প (নাগরী : ২০১৬), মনোবিকলনগল্প (নাগরী : ২০২১) উপন্যাসগ্রন্থ : শীলবাড়ির চিরায়ত কাহিনি (ইত্যাদি : ২০০৭, কলকাতা ধানসিঁড়ি সংস্করণ ২০১৪, চৈতন্য সংস্করণ ২০১৬), সুইসাইড নোট (নাগরী : ২০১৯) প্রবন্ধগ্রন্থ : কবিতাশিল্পের জটিলতা (গতিধারা : ২০০৭, চৈতন্য সংস্করণ ২০১৭), নজরুলসাহিত্যে পুরাণ প্রসঙ্গ (বাংলা একাডেমি : ২০০৯), জীবনানন্দ দাশ : মিথ ও সমকাল (গতিধারা : ২০১০), বাংলাদেশের সাম্প্রতিক ধারার কবিতা (গতিধারা : ২০১২), মিথ-পুরাণের পরিচয় (রোদেলা : ২০১৬), মিথ-ঐতিহ্য সমাজ ও সাহিত্য (নাগরী : ২০১৭)

দাঁড়ানোর সীমানা

দাঁড়ানোর সীমানা - শিমুল মাহমুদের ভাত খাওয়ার শব্দ পান্ডুলিপির নির্বাচিত কবিতা। কবিতায় কবি মানুষের ভেতরের মানুষকে আবিষ্কার করবার চেষ্টা করেছেন। যেখানে মানুষের সমতাহীন সমাজ ব্যবস্থার প্রতিচিত্র নির্মান করেছে তার প্রতিটি কবিতায়।